Thursday, May 19, 2016

চাল, সাইকেল, কন্যাশ্রীর পথেই ইতিহাস গড়লেন মমতা | আনন্দবাজার

সব হিসাব গুলিয়ে দিলেন মমতা। ভোট ঘোষণা হওয়ার পর থেকেই বহু সমীকরণ, বহু পাটিগণিত, বহু যোগ-বিয়োগ শুরু হয়েছিল রাজ্যজুড়ে। সব অঙ্ককেই ভুল প্রমাণ করে ইভিএমে নিজের পক্ষে ঝড় তুলে দিলেন তৃণমূলনেত্রী। তাঁর বিপক্ষে যে সব পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছিল, সে সব তো খড়কুটোর মতো ভেসে গেলই। ভেসে গেলে সেই সব বিশ্লেষণও, যেখানে তৃণমূলকে সামান্য এগিয়ে রাখা হয়েছিল।

Wednesday, May 18, 2016

তেমাথার মোড়ে বাংলা | আমন্দবাজার

সম্ভাবনা ১
১৭০-র বা তার বেশি আসন জিতে একক বৃহত্তম দল হিসাবে নির্বাচিত হবে তৃণমূল কংগ্রেস। স্বস্তিজনক জয় হবে দিদির। চড়াম চড়াম ঢাকের আওয়াজে কান পাতা দায় হবে। সরকারের স্থায়িত্ব ও স্থিরতা নিয়ে তখন আশু কোনও আশঙ্কা থাকবে না। সদিচ্ছা থাকলে সে ক্ষেত্রে নয়া মন্ত্রিসভা সারদা-নারদার সংক্রমণমুক্ত রাখার ঝুঁকি নিতে পারেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

কেউই তো হারছে না! কী যে হবে আজ | আনন্দবাজার

এক একটা করে মেসেজ ঢুকছে ইনবক্সে। এক বার চোখ বুলিয়েই তিনি ডিলিট করছেন। এ সব মেসেজের প্রতিপাদ্য একটাই। কোথায় ক’টা আসন জেতার আশা করা হচ্ছে, যে যার নিজের মতো হিসেব পাঠাচ্ছেন! ভোট-পরবর্তী সমীক্ষার পর থেকে এমন মেসেজের হিড়িক আরও বেড়ে গিয়েছে! শেষ পর্যন্ত বামফ্রন্টের নেতাদের সঙ্গে আলোচনায় বুধবার হাসতেই হাসতেই কথাটা বলে ফেলেছেন সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক— যার সঙ্গেই ফোনে কথা হচ্ছে, সে-ই বলছে জিতবে! কেউ তো কোথাও হারছে বলে মনে হচ্ছে না! কী যে হবে কাল!

নাজেহাল সিপিএম হাতিয়ার করেছে সেই সোস্যাল মিডিয়াকেই | বর্তমান


বিএনএ, আসানসোল: এতদিন সিপিএমের কাছে যা ছিল লড়াইয়ের টনিক এখন সেটাই তাদের গলায় কাঁটা হয়ে বিঁধছে। সোস্যাল মিডিয়ায় নিজেদের পছন্দের সমীক্ষার ফলকে সামনে রেখে কর্মীদের চাঙা রাখার চেষ্টা করেছিল বাম শিবির। এমনকি ক্ষমতায় আসছে ধরে নিয়ে জোট সরকারের মন্ত্রী তালিকাও তৈরি হয়ে গিয়েছিল সোস্যাল মিডিয়ায়। কিন্তু সোমবার দেশের নামী সংস্থাগুলি বুথ ফেরত সমীক্ষা প্রকাশ করার পর বেসুরে গাইতে শুরু করেছেন বাম নেতারা।

ফল খারাপ হলে দায় প্রদেশ নেতৃত্বের ঘাড়ে চাপিয়েই রাহুলের ভাবমূর্তি অটুট রাখার চেষ্টা করবে কং ম্যানেজাররা | সন্দীপ স্বর্ণকার - বর্তমান

আঙুল উঠবে অধীরের বিরুদ্ধে

নয়াদিল্লি, ১৮ মে: পশ্চিমবঙ্গে আগামীকাল সাইক্লোনের পূর্বাভাস শুনিয়ে রেখেছে আবহাওয়া দপ্তর! আবহাওয়ার পূর্বাভাস মিলুক না মিলুক, ভোটের ফল খারাপ হলে কংগ্রেসের অন্দরে বাইরে যে দোষারোপের সাইক্লোন বইবে, তা বলাই বাহুল্য! এআইসিসির নেতাদের একাংশ এখন থেকেই প্রদেশ নেতৃত্বকে এড়াতে শুরু করেছেন।